facebook-creates-depression-loneliness

কিশোর-কিশোরীদের ফেসবুক আসক্তি: বাড়ছে একাকিত্ব-হতাশা

11/13/2019

গবেষণায় (Kira, 2019) দেখা গেছে সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রতিদিন তিন ঘণ্টারও বেশি সময় ব্যয় করা কিশোর-কিশোরীদের হতাশা, উদ্বেগ, বদমেজাজ এবং অসামাজিক আচরণ সহ বিভিন্ন মানসিক ও শারীরিক সমস্যাগুলি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

প্রায় সাড়ে ৬ হাজারের বেশি  ১২ থেকে ১৫ বছর বয়সী আমেরিক্যানরা সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রতিদিন কতটা সময় ব্যয় করে এবং পাশাপাশি তাদের কোনো মানসিক ও শারীরিক সমস্যা আছে কিনা তা নিয়ে স্ব-প্রতিবেদন করে। প্রতিবেদনের তথ্যের আলোকে দেখা যায় দৈনিক তিন ঘন্টা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যয় করার ফলে যে ভাবে মানসিক সমস্যা বাড়ছে সেই হার অন্যান্য সকল ভাবে মানসিক সমস্যায় আক্রান্তের তুলনায় বেশি।

কিশোর-কিশোরীদের উপর সামাজিক মিডিয়ার প্রভাব দুটি প্রধান উপায়ে প্রকাশ পায়: অভ্যন্তরীণভাবে (হতাশা এবং উদ্বেগ) এবং বাহ্যিকভাবে (আগ্রাসী আচরণ বা অসামাজিক আচরণ)। ভবিষ্যতে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে না এরকম কোনো কিশোর-কিশোরীদের খুজে পাওয়া যাবেনা।

সামাজিক মিডিয়া, মোবাইল বা অন্যান্য ডিভাইসের স্ক্রিনের আলো এবং অন্যান্য প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশ বাধাগ্রস্থ হচ্ছে । ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইরভিনের একটি গবেষণা থেকে দেখা যায় প্রযুক্তি ব্যবহারের সময়ের সাথে মানসিক স্বাস্থ্যের কোনো যোগসূত্র নেই। তবে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ক্ষেত্রে আলাদা হতে পারে। এই বছরের শুরুর দিকে প্রকাশিত (Tarafdar, 2019) গবেষণার  সামাজিক মিডিয়া ব্যবহার এবং সামাজিক মিডিয়াতে আসক্তির  মধ্যে একটি যোগসূত্র পাওয়া গেছে ।

প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী কিশোর-কিশোরীরা বলেছে সোসাল মিডিয়াতে প্রতিদিন গড়ে তারা তিন ঘন্টা সময় ব্যয় করে। কিন্তু এই সময় আরো বেশি হতে পারে।  এখন ফেসবুকের থেকেও বেশি আকৃষ্ট হচ্ছে টিকটকের প্রতি। এছাড়া স্ন্যাপচ্যাট, ইন্সটাগ্রাম এসবের ডেটা ঘাটলে দেখা যাবে এর ব্যবহারকারীদের মধ্যে কিশোরকিশোরীদের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

এই গবেষণার জন হপকিন্সের সিনিয়র লেখক কিরা রিহম বলেছেন বাঁধাধরা তিন ঘন্টা ব্যবহারের ফলেই যে মানসিক রোগব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে বিষয়টা তা না। গড়ে তিন ঘন্টাকে একটা মডেল হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছে মাত্র। এই গবেষণার সারমর্ম এটাই যে অতিরিক্ত মাত্রায় সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ফলে দিন দিন বাড়ছে হতাশা ও একাকীত্বতা যা সুস্থ মানসিকতাকে নস্ট করছে।

(Originally posted on Technology Review)

References

Kira. (2019). Associations Between Time Spent Using Social Media and Internalizing and Externalizing Problems Among US Youth. JAMA Psychiatry.

Tarafdar, M. (2019). Explaining the link between techno stress and technology addiction for social networking sites: A study of distraction as a coping behavior. Information system journal.