ধুমপানের আসক্তির জন্য দায়ী “ইনসুলার কর্টেক্স”!

সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৫

মস্তিষ্কের একটা নির্দিষ্ট অংশ মানুষকে ধুমপানের প্রতি আসক্ত করে। Neuroscientist-গণ বলছেন স্ট্রোকের মাধ্যমে যদি brain এর এই অংশটা নিষ্ক্রিয় হয়ে যায় তাহলে ধুমপানের মত খারাপ অভ্যাস থেকে মুক্তি পাওয়া সহজ! ধুমপানের আসক্তির জন্য দায়ী মস্তিষ্কের এই অংশকে বলা হয় insular cortex.

বিশেষজ্ঞরা insular cortex stroke এ আক্রান্ত বেশ কিছু রুগির উপর গবেষণা করেছেন। যারা এতে সুস্থ্য হতে পেরেছেন এবং পূর্বে ধুমপায়ী ছিলেন তাদের বেশির ভাগই ধুমপান ছেড়ে দিতে সক্ষম হয়েছেন। স্ট্রোকের পর চিকিৎসকগণ সাধারণত রুগিকে ধুমপান ছাড়ার জন্য পরামর্শ দিয়ে থাকেন। গবেষণায় দেখা গেছে স্ট্রোকের ফলে মস্তিষ্কের ইনসুলার কর্টেক্স ক্ষতিগ্রস্থ হলে এটা ধুমপান ত্যাগে সাহায্য করে। ধারণা করা হচ্ছে ধুমপানের আসক্তির জন্য কাজ করে ব্রেনের এই অংশটি। স্ট্রোকের ফলে এর কার্যকারীতা বিনষ্ট হওয়াতে রুগি ধুমপান করার জন্য আগের মত আগ্রহ অনুভব করেন না।

ধুমপান বন্ধ করার জন্য যেসব ওষুধ রয়েছে সেগুলো মূলত দেহে নিকোটিনের প্রবেশের জন্য ব্রেনের সিগনাল যাওয়ার রাস্তাটাকে ব্লক করে দেয়। এই brain signal pathway টা block হয়ে যাবার ফলে এই ওষুধ গ্রহনকারী ধুমপান করার প্রতি আকৃষ্ট হন না। Philips এর Clinical Research Scientist হিসেবে কর্মরত Amir Abdolahi মনে করেন ইনসুলার কর্টেক্সের মাধ্যমে এমন কিছু একটা হয় যার ফলে রুগি ধুমপানে আগ্রহ হারান। কিন্তু এখনো এই বিষয়টা প্রমাণিত নয়। আরো পরীক্ষা-নিরিক্ষা ও গবেষণার ফলে বের হতে পারে যে কোন ভাবে এই অংশকে নিষ্ক্রিয় করলে রুগি ধুমপান ছাড়েন কিনা, বা এর ফলে অন্য কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় কিনা। পুরো ব্যাপারটি পরিষ্কার হতে আরো দীর্ঘ গবেষণা প্রয়োজন বলেও তিনি জানান।

বিজ্ঞানীদের ধারণা এই ধরণের স্ট্রোকের ফলে মস্তিষ্ক মানবদেহে নিকোটিন (Nicotine) এর চাহিদার সিগনাল পাঠাতে ভুলে যায়। তাই এটা ধুমপান ছাড়তে সহায়ক। স্ট্রোকের ফলে ব্রেনের যে কোন অংশই ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে। তাই এটি কখনোই কাম্য নয়। আমাদের পরিবেশ ও বিশুদ্ধ বায়ুতে ভবিষ্যত প্রজন্মের বেড়ে ওঠা নিশ্চিত করার চিন্তা করে হলেও উচিত ধুমপান ত্যাগ করা। কারণ ধুমপান নিজের ও পরিবারের সদস্যদের জন্য ক্ষতিকর।
সূত্র – বিবিসি

Tech Analyst – Techmorich